প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কমিটিতে সাধ্বী প্রজ্ঞা, সোচ্চার বিরোধীরা

108

নয়াদিল্লি: সাধ্বী প্রজ্ঞা এবং বিতর্ক- দুটো এখন যেন সমার্থক শব্দ৷ এবার প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কমিটিতে বিজেপি সাংসদ সাধ্বী প্রজ্ঞাকে রাখা নিয়ে শুরু হয়েছে বিতর্ক৷ কংগ্রেস মোদী সরকারের এই সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করেছে৷ দলের তরফে জানান হয়েছে, প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের মতো গুরুত্বপূর্ণ দফতরের কমিটিতে সাধ্বীকে রাখা মানে দেশের অপমান৷

উল্লেখ্য, প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কমিটিতে ২১ জন সদস্যের নাম মনোনীত করে কেন্দ্রীয় সরকার৷ কমিটির মাথায় রয়েছেন অবশ্যই প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং৷ এই ২১ জনের কমিটিতে অনেক বিরোধী দলের সাংসদদেরও রাখা হয়েছে৷ রয়েছেন এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পাওয়ার, ডিএমকে নেত্রী কানিমোঝি, তৃণমূল কংগ্রেস নেতা সৌগত রায়, ন্যাশনাল কনফারেন্স নেতা ফারুক আবদুল্লা প্রমুখ৷ তালিকার ১২ নম্বরে নাম রয়েছে সাধ্বী প্রজ্ঞার৷

কংগ্রেস প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের কমিটিতে সাধ্বীর নাম রাখা নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে৷ দলের তরফে প্রণব ঝা এদিন ট্যুইট করে লেখেন, প্রজ্ঞা ঠাকুর যিনি একজন সন্ত্রাসে অভিযুক্ত এবং গডসে ভক্ত, তাঁর নাম বিজেপি সরকার এই কমিটির জন্য মনোনীত করেছে৷ এই সিদ্ধান্ত দেশের নিরাপত্তা বাহিনী, সম্মানীয় সাংসদ এবং প্রত্যেক ভারতীয়কে অপমান করার সামিল৷ এমন সিদ্ধান্ত দেশের গণতন্ত্রের জন্য শুভ নয়৷ বিজেপিকে তিনি এই সিদ্ধান্ত পুর্নবিবেচনা করার আর্জি জানান৷

২০০৮ সালে মালেগাঁও বিস্ফোরণে নাম জড়ায় কট্টর হিন্দুত্ববাদী নেত্রী সাধ্বী প্রজ্ঞার৷ তাঁকে গ্রেফতারও করা হয়৷ বেআইনি কার্যকলাপ এবং অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের হয় তাঁর বিরুদ্ধে৷ কিন্তু পরে হিন্দু নেত্রী জামিনে মুক্ত পান৷ যোগ দেন বিজেপিতে৷ সেই সাধ্বীকে বিজেপি লোকসভা ভোটের টিকিট দেয়৷ তাঁকে প্রার্থী করা হয় ভোপালে৷ প্রথমবার ভোটে দাঁড়িয়েই জয়লাভ করেন৷ বিতর্কিত মন্তব্যের জন্য পরিচিত সাধ্বী প্রজ্ঞা মহাত্মা গান্ধীর হত্যাকারী গডসেকে প্রকৃত দেশপ্রেমী বলে দাবি করেছিলেন৷ সেই মন্তব্যের জন্য তাঁকে অনেক সমালোচনা হজম করতে হয়৷

LEAVE A REPLY

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে